MCP IDEA
Moving, Cleaning & Pest Control Services

বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস

বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস – 01962180678

বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস

বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস ভাবছেন বাসা পাল্টাবেন? কিন্তু ঝামেলা সহ্য হচ্ছে না? আপনাকে টেনশন মুক্ত রাখতে আমরা আছি আপনার পাশে।আমরা আপনার বাসা পাল্টানোর সব দাযিত্ব বুঝে নিয়ে বাসা পাল্টে দিবো। সুতরাং আমাদেরকে কল করুন এবং ঝামেলা মুক্ত হন. “MCP IDEA”  বাসা বদল সার্ভিস

বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস

ঢাকা শহরের এ যেকোনো জায়গায় আমরা অভিজ্ঞ লেবার দ্বারা খুব যত্ন সহকারে প্যাকিং ও মুভিং করে আপনার বাসা ও অফিস শিফট করে থাকি। আমরা আপনাকে দিচ্ছে দক্ষ লেবার দ্বারা কোনো প্রকার ঝামেলা ছাড়াই বাসা ও অফিস বদল করে দেয়ার নিশ্চয়তা । আপনার মূল্যবান মালামাল অতি যত্ন সহকারে গন্তব্য স্থানে পৌঁছে দেয়াই আমাদের লক্ষ্য। সার্ভিসটি এখনই কল করুন আমাদের হটলাইন নম্বর এ। বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস

বাসা বদল সার্ভিস ঢাকা | 01719198778

রাজধানী ঢাকায় বাসা বদল করুন খুব সহজে:

যারা ভাড়া বাড়িতে থাকেন তাদের জন্য বাসা বদল মানে এক বিড়াট ঝামেলার বিষয়। বিশেষ করে রাজধানী ঢাকায় বাসা বদলের ঝামেলার কথা ভেবে অনেকেই বছরের পর বছর থেকে যান একই বাসায়। বাসা পরিবর্তনের নাম নিলেই প্রেশার বেড়ে যায়। কারন একমাত্র ভুক্তভোগিরাই জানেন বাসা বদল কত বড় ঝক্কি ঝামেলার বিষয়। তবে এখন যুগ পরিবর্তন হয়েছে। বাসা বদলেও আধুনিকায়ন হয়েছে এখন আর আগের মত বাসা বদল কোন ঝামেলার বিষয় নয়। এখন খুব সহজেই বাসা পরিবর্তনের সকল কাজ সম্পন্ন হয়ে থাকে। বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস,

বাসা বদলের রক্ষা কবজ হচ্ছে প্যাকিং:

রাজধানী ঢাকায় বাসা বদল করুন খুব সহজে:

যারা ভাড়া বাড়িতে থাকেন তাদের জন্য বাসা বদল মানে এক বিড়াট ঝামেলার বিষয়। বিশেষ করে রাজধানী ঢাকায়  “MCP IDEA” বাসা বদলের ঝামেলার কথা ভেবে অনেকেই বছরের পর বছর থেকে যান একই বাসায়। বাসা পরিবর্তনের নাম নিলেই প্রেশার বেড়ে যায়। কারন একমাত্র ভুক্তভোগিরাই জানেন বাসা বদল কত বড় ঝক্কি ঝামেলার বিষয়। তবে এখন যুগ পরিবর্তন হয়েছে। বাসা বদলেও আধুনিকায়ন হয়েছে এখন আর আগের মত বাসা বদল কোন ঝামেলার বিষয় নয়। এখন খুব সহজেই বাসা পরিবর্তনের সকল কাজ সম্পন্ন হয়ে থাকে। বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস,

বাসা বদলের রক্ষা কবজ হচ্ছে প্যাকিং:

বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস

অনেকেই আছে বাসা বদলের পূর্বে মুভিং কোম্পানীকে বলে থাকে যে, আসবাবপত্র ডেমেজ হবেনাতো? দাগ বা স্ক্রেচ পরবেনাতো ইত্যাদি প্রশ্ন করে? এমন অনেক আছেন যে, তারা গ্যারান্টি সহ কাজ করার নিশ্চয়তা চান! তাদের যদি বলা হয় উন্নতমানের প্যাকিংই হচ্ছে আসবাবপত্র ক্ষতি হইতে হেফাজতের একমাত্র রক্ষা কবজ। যদি বাসা বদলের পূর্বে সমস্ত ফার্ণিচার ভালভাবে প্যাকিং করা না হয়, তবে যত সতর্কভাবেই লোডিং আনলোডিং করা হউক না কেন? ফার্ণিচার ডেমেজ হওয়ার আশংকা থেকেই যায়। এজন্য টাকা একটু বেশী খরচ হইলেও প্যাকিং’টা যেন সুন্দর হয় এ বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে লক্ষ্য রাখতে হবে। প্যাকিং এর জন্য খরচপাতী একটু বেশী হলেও আপনি উপকৃত হবেন। বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস,

প্যাকিং খরচ বাচাতে গিয়ে দামী ও শখের আসবাবপত্রটি ক্ষতিগ্রস্থ হয়, তবে ইহা মেরামত করার জন্য যে পরিমান খরচ হয় এর চেয়ে কম খরচে প্যাকিং করানো যেত । আর একবার ফার্ণিচার ডেমেজ হলে কখনও আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনা সম্ভব নয়। এজন্য আমাদের পরামর্শ হলো শিফটিং এর পূর্বে অবশ্যই উন্নতমানের প্যাকিং নিশ্চিত করুন। যদিও খরচপাতি একটু বেশী হয়।

 

বাসা বদলের প্যাকিং ধরন:

বাসার আসবাবপত্র স্থানান্তরের জন্য বিভিন্ন ধরনের প্যাকিং এর প্রস্তুতি নিতে হয়। যেমন: ব্যবহার্য পোষাক আষাক ও কাপর চোপর প্যাকিং, বেড শিট, পর্দা, বালিশের কভার, লোপ-তোষক, ইত্যাদি। কাঁচের জিনিসপত্র, ও ডাইনিং ও কিচেনের আইটেম তো আছেই। MCP IDEA,

1. ইলেকট্রিক আইটেম প্যাকিং: ঘরের হোম এপ্লায়েন্স ও ইলেকট্রিক আইটেমগুলো খোলার পর বাবল পেপার দিয়ে প্যাকিং করুন। ইলেকট্রনিক্স ও হোম এপ্লায়েন্স প্যাকিং: ফ্রীজ, এয়ারকন্ডিশন প্যাকিং, ফ্যান প্যাকিং, ওয়াশিং মেশিন প্যাকিং, ইত্যাদি আইটেমগুলো একটু সতর্কতার অভাবে ময়লা বা দাগ লেগে যায়। ফলে দেখতে বিশ্রী দেখা যায়।

2. মেট্রেস প্যাকিং: ঘরের প্রতিটি মেট্রেস খাট থেকে নামিয়ে পুরোটা স্ট্রেচ রেপিং দিয়ে পেচাতে হবে। নতুবা ময়ল হয়ে যাবে। মেট্রেস ময়লা হলে দেখতে খারাপ দেখা যায়। মেট্রেস রেপিং না করলে ওয়ার্কাররা কাজ করার সময় তাদের গায়ের ময়লা ও ঘাম লেগে কি অবস্থা হয় একবার ভাবুনতো, এগুলোতো ধোয়াও যায়না ফলে এ অবস্থায়ই ব্যবহার করতে হয়। এজন্য মেট্রেস ও জাজিম অবশ্যই প্যাকিং করে শিফটিং করতে হবে।

3. সোফা প্যাকিং: সোফা প্যাকিং এর পদ্ধতিটা ভিন্ন রকমে করতে হয়। প্রথমে সমস্ত ফোম নামিয়ে আলাদা করতে হবে, তারপর ফোমগুলো পলি দিয়ে রেপিং করতে হবে। যদি অত্যন্ত দামি ও বিদেশী সোফা হয় তবে সোফার প্রতিটি অংশ/ কাঠ আলাদা ফোম ও বাবল পেপার দিয়ে রেপিং করতে হয়। সাধারন সোফা হলো পুরোটাকে করিগেটেড কার্টুন দিয়ে পেচিয়ে প্যাকিং করে টেপ লাগিয়ে দিতে হয়।

4. ক্রোকারিজ ও কিচেন প্যাকিং: বাসা শিফটিং এর জন্য বাসার ব্যবহার্য ক্রোকারিজ, কাচের জিনিসপত্র, হাড়িপাতিল, এন্টিক ও দামি আইটেম, শো-পিস অত্যন্ত যত্ন সহকারে প্যাকিং করতে হয়। এসব প্যাকিং করতে বিভিন্ন রকমের ম্যাটারিয়াল ব্যবহার করতে হয়। ক্রোকারিজ বিভিন্ন ভাবে প্যাকিং করা যায় যেমন শুধু নিউজ প্রিন্ট দিয়ে পেচিয়ে, ফোম পেপার, বাবল পেপার। বাবল পেপার দিয়ে প্যাক করলে সাধারনত খরচ বেশীই হয়ে থাকে তবে লোকাল বাসা বদলের জন্য বাবল রেপ দিয়ে প্যাকিং না করলেও হয়। যাই হোক যেভাবেই রেপিং করে কার্টুন বক্সে রাখতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে যেন কার্টুন বক্সে কোন ফাকা যায়গা না থাকে তবে ভেঙ্গে যাওয়ার আশংকা থাকে।

5. হাড়ি পাতিল প্যাকিং: হাড়ি পাতিল সাধারনত রেপিং প্রয়োজন হয় না। চাইলে বস্তার মধ্যে রাখতে পারেন। আবার কার্টুন বক্স এ ভরেও নিতে পারেন। একটি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে ভঙ্গুর কোন জিনিসপত্র প্যাকিং ছাড়া কার্টু বক্স এ বহন করা যাবেনা।

6. ফার্ণিচার প্যাকিং: বাসা বদলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্যাকিং হচ্ছে ফার্ণিচার প্যাকিং। ঘরের প্রতিটি ফার্ণিচার যদি ভালমত প্যাকিং করা না হয় তবে ডেমেজ হবার সম্ভাবনা থাকে অধিক। বিশেষ করে ডাইনীং টেবিলের প্রতিটি চেয়ার ভালমত প্যাকিং করতে হয়। টেবিলের টপ যদি কাচের হয় তবে গ্লাসটি খুলে মোটা ফোম অথবা মোটা কার্টুন দিয়ে প্যাক করতে হবে। খাটে ব্যবহৃত তোষক দিয়েও পেচিয়ে বহন করা যায়। মনে রাখতে হবে ট্রাকে উঠিয়ে খাড়া করে রাখতে হবে এবং দুই পাশেই ব্যাক আপ থাকতে হবে নতুবা ভেঙ্গে যাওয়ার আশংক থাকে।

বাসা বদল

বাসা বদল

বাসা বদলের এত ঝক্কি ঝামেলা আজকাল অনেকেই পোহাতে নারাজ কারন এতসব আয়োজন যোগার করা অনেক সময় সাপেক্ষ ব্যাপার। আপনার হাতে যদি পর্যাপ্ত সময় না থাকে তবে এ সকল দায়িত্ব আমাদের দিয়ে দিন। আমাদের রয়েছে প্রত্যেকটি কাজের জন্য দক্ষ ও অভিজ্ঞ টিম। প্রত্যেকটি টিম আলাদা আলাদা কাজ করে ফলে অল্প সময়ে আবপনার বাসা স্থানান্তরের পুরো কাজটি সম্পন্ন হয়ে যাবে। শুধু মাত্র একটি ফোন কলের মাধ্যমে পেতে পারেন আমাদের সকল সেবা। কয়েকঘন্টার মধ্যে আমাদের এসেসমেন্ট টিম হাজির হয়ে যাবে আপনার দোড়গোড়ায়। তারা আপানার পুরো বাসা পরিদর্শন করে একটি প্যাকেজ নির্ধারণ করে দাম দস্তুর ঠিক করে দিবে এবং বাসা শিফটিং এর একটি পরিকল্পনার একটি সংক্ষিপ্ত ছক তৈরী করে বাসার মালিক ও মুভিং কোম্পানীর মধ্যে সমন্বয় তৈরী করে আসবে।

ক্ষতিপূরণ ও ড্যামেজ কাভারেজ

আপনি যখন আমাদের বাসা বদল সার্ভিস কন্ফার্ম করবেন তখন আপনার মালামালের সকল দায়িত্ব আমাদের। তাই বাসা বদল করার সময় কোনোকিছু হারিয়ে গেলে বা কোনো ফার্নিচারের, ইম্পরট্যান্ট মালামাল ক্ষতি হলে, সেটার যথাযথ ক্ষতিপূরণ আমাদের কোম্পানির পক্ষ থেকে প্রদান করে থাকি। তাছাড়া বাসা বদল করার সময় দুর্ঘটনাবশত কোন মালামাল ক্ষতি হলে, একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ ক্ষতিপূরণ দিয়ে থাকি। তাই আপনার বাসা বদল বা বাসা শিফটিং এর জন্য আমাদের কোম্পানীকে ১০০% বিশ্বাস করে কাজ করাতে পারেন।

বাসা বদল এর সর্বোচ্ছ নিরাপত্তা ও সঠিক সময়ে সার্ভিস প্রদান

আমাদের প্রফেশনাল বাসা বদল ভেরিফাইড মোভার্স টীম আপনার বাসার একদম ছোট জিনিস থেকে বাসার সবচেয়ে বড় জিনিস পর্যন্ত আপনার প্রত্যেকটি মালপত্র আমরা তালিকাভুক্ত করি সর্বোচ্চ সতর্কাতা মেনে। যার ফলে আপনার বাসার কোন মালামাল হারানো বা চুরি হওয়ার ভয় নেই। আমরা চেষ্টা করি আপনাদের প্রত্যেকটি মালামাল সর্বোচ্ছ নিরাপত্তা ও সঠিক সময়ে সার্ভিস প্রদান করতে। আপনি যদি আমাদের সার্ভিস একবার কন্ফার্ম করেন, আমাদের সার্ভিস প্রোভাইডাররা নির্দিষ্ট দিনে নির্দিষ্ট সময়ে হাজির হয়ে যাবে আপনার ঠিকানায়।

বাসাবদল বা অফিস বদল করার জন্য আমাদের সাথে যেভাবে যোগাযোগ করবেন

বাসাবদল বা অফিস বদল করার জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে আপনি/আপনারা যেকোনো সময়

বাসা বদল সার্ভিস

এমন একটা সময় ছিল বাসা বদল মানেই মাসের শেষের দিকে অথবা বছরের শেষ ও শুরুর মাসেই বেশীরভাগ মানুষ বাসা পরিবর্তন করত। কিন্তু বর্তমান যুগে মাসের বিভিন্ন সময়ই এ কাজটি করতে দেখা যায়। ঢাকা শহরেরর বাসা বদল সার্ভিসের খোঁজ খবর নিয়ে বিস্তারিত জানা যায় এই বিষয়ে। বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস,

তবে বিশেষ করে মাসেরব শেষে ও বছরের শেষে ও জুন জুলাই এর দিকে বাসা বদলের হিড়িক পরে। বিভিন্ন প্রয়োজনে বাসা পরিবর্তন করে থাকেন। তবে অনুসন্ধানে জানা যায় সন্তানের নতুন স্কুলে ভর্তির সময়ই বেশ কিছু সংখ্যক মানুষ বাসা বরিবর্তন করে থাকেন। চাকুরীতে বদলী, চাকুরী স্থলে বাসা স্থানান্তর, বাড়িওলার সাথে বনি বনা ইত্যাদি কারনে বাসা শিফটিং করা হয়ে থাকে। বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস,

তবে কথায় আছেনা প্রয়োজন আইন মানে না। যে কারো যে কোন সময়ই বাসা পরিবর্তেনর ডাক আসতে পারে। আবার অনেকে তাতক্ষনিকভাবেও বাসা বদলের সিদ্ধান্ত নিতে হয়। এই কাজটি সামাল দেয়া কিন্ত খুবই ঝামেলাপূর্ণ। কারন অল্প সময়ের মধ্যেই আপনাকে সকল কাজগুলো সম্পন্ন করতে হবে। বলা যায় প্রায় এক মাসের কাজ আপনাকে মাত্র কয়েকদিনের মধ্যেই সাড়তে হবে। তবে কোন কাজই থেমে থাকে না।

যারা পরিবারসহ থাকেন শহরের বিভিন্ন এলাকায় নতুন বছরে সন্তানের নতুন স্কুলের ঠিকানায় বাসা স্থানান্তর প্রয়োজন। ফলে অনেকের কপালে চিন্তার ভাঁজ। কারণ নির্বাচিত এলাকায় বাসা নিতে হবে। ভাড়া বাসা পাওয়ার চেয়েও তার বড় চিন্তা বাসার আসবাবপত্র নতুন বাসায় ওঠানো নিয়ে। এই গল্প এ শহরের প্রায় প্রতিটি ভাড়াটিয়ারই। মাসের শেষে বা প্রথম সপ্তাহে বালিশ-তোশক, হাঁড়ি-পাতিলের লটবহর নিয়ে শহরের পথে ঠেলাগাড়ি বা ট্রাক চলতে থাকার দৃশ্যটি খুবই চেনা। ঢাকা শহরের বাসিন্দাদের বেশিরভাগই থাকেন ভাড়া বাড়িতে। চাকরি বা ব্যক্তিগত কারণে বাসা বদলও ভাড়াটিয়া জীবনযাপনের নিয়মিত অনুষঙ্গ। বাসা বদলানো মানেই হরেক রকমের ঝক্কি-ঝামেলা। এ থেকে মুক্তিতে বাসা বদলের সুবিধা দিতে ঢাকা শহরে কাজ করছি দীর্ঘদিন যাবত। আমাদের শুধু ফোনে বা অনলাইনে ফরমাশ দিলেই চলবে। বাদ বাকী কাজ আমাদের উপর ছেড়ে দিয়ে আরামে থাকতে পারেন।

বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস, আমাদের সার্ভিস সমুহ: বাসা বদল, বাসা শিফটিং, বাসা পরিবর্তন, বাসা স্থানান্তর, প্যাকিং সার্ভিস, প্যাকিং ম্যাটারিয়ালস, ট্রাক ও পিকাপ, বাসা বদলের লেবার, অফিস পরিবর্তন

বাসা পাল্টানো সার্ভিস

বাসা পাল্টানো সমস্যা নিরসনে ঢাকা শহরের সকল শ্রেনীর গ্রাহকদের সেবা দানের লক্ষ্যে ২০০o ইং সালে প্রথম প্রাতিষ্ঠানিক ভাবে শুরু করি শিফটিং ব্যবসা। গ্রাহকদের দীর্ঘদিনের ভোগান্তি ও হয়রানির সমাপ্তি ঘটে আমাদের এই প্রয়াসের মাধ্যমে। সহজ করে দেই শিফটিং কার্যক্রম। শুধুমাত্র একটি ফোন কলের মাধ্যমে গ্রাহকদের দোরগোড়ায় পৌছে দেই আমাদের সেবা।বাসা বদলের সকল সার্ভিস পেতে পারেন আমাদের কাছ থেকে। আমাদের সার্ভিস গ্রহন করলে অন্য কোন সার্ভিস এর জন্য আর কারো কাছে ধরনা দিতে হয়না। কারন আমদের রয়েছে প্রতিটি কাজের জন্য আলাদা এক্সপার্ট টিম।

 

যদি ও আজকাল আমাদেরকে অনুসরন অনুকরন করে গজিয়ে উঠেছে নাম সর্বস্ব কিছু প্রতিষ্ঠান। যাহাদের মুষ্ঠিমেয়ই কৃতজ্ঞতা ও সম্মানের সহিত স্মরন করে আমাদের –MCPIDRA, এর নাম। বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস,

আমাদের নিজস্ব জনবল ছাড়াও এ কাজে শতাধিক লোকের কর্মসংস্থান হয়েছে এই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে। এখানেই আমাদের সার্থকতা।

দীর্ঘ 20 বছরে সাবেক মহামান্য সেনাপ্রধান এর বাসা হইতে শুরু করে রাষ্ট্রদূত, সচিব, কবি, সাহিত্যিক, চিকিৎসক, অধ্যাপক, সাংবাদিক, শিল্পি, শিল্পপতি, কর্ণেল, মেজর, ক্যাপ্টেন, ব্যবসায়ী, বিভিন্ন নামকরা

প্রতিষ্ঠানে কর্মরত কর্মকর্তা সহ অসংখ্য দেশী-বিদেশী স্বনামধন্য ও খ্যাতিমান ব্যক্তি/ প্রতিষ্ঠানের বাসা শিফটিং এবং অফিস শিফটিং করিয়া অভিজ্ঞতার ভান্ডার হয়েছে অনেক সমৃদ্ধশালী।

সময়ের পালাক্রমে আজ ঢাকা সহ সারা দেশে প্যাক এন্ড শিফটে একটি সু-পরিচিত ও বিশ্বস্থ প্রতিস্ঠান হিসেবে আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।

সূচনা লগ্ন থেকে এযাবত কাল গ্রাহকদের সেবাদানকালে অজ্ঞাতসারে হয়ত কিছু ভূলত্রুটি হয়ে গেছে।

যারা ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখেছেন তাদের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞ। অনেকেই এই ব্যতিক্রম ধর্মী প্রয়াসের জন্য সাধুবাদ জানিয়ে বুদ্ধি পরামর্শ দিয়েছেন ও ভবিষ্যতে অনেক দূর এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন। বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস,

অনেকেই প্রশংসা করেছেন। এসব কিছুই – কে রেখেছে চলমান ও গতিশীল।

মহান আল্লাহপাকের করুনায় সততা, নিষ্ঠা, পরিশ্রম, প্রতিশ্রুতি ঠিক রাকার চেষ্টা করা এবং গ্রাহকের প্রতি অগাধ বিশ্বাস ও সম্মান এসব কিছুই আমাদের দীর্ঘ এক দশকের এগিয়ে চলার পাথেয়।

 

ভবিষ্যতে ও অনুরুপ সহযোগিতা সহ সেবার মান উত্তরোত্তর বৃদ্ধির অঙ্গীকার ব্যক্ত করছি সম্মানিত নতুন-পুরাতন গ্রাহকদের প্রতি।

অফিস শিফটিং এর আধুনিকতার ছোয়া

অফিস শিফটিং এর আধুনিকতার ছোয়া
অফিস শিফটিং নিয়ে তিক্ত অভিজ্ঞতা নেই এমন মানুষ নেহায়েতই কম আছে। সেই তীক্ত অভিজ্ঞতার কথা অনেকেই ভুলতে বসেছে। আজ ঘরে বসেই মাত্র একটি ফোন কলের মাধ্যমে শিফটিং এর সকল সেবা পেয়ে থাকেন। উন্নত ও আন্তর্জাতিক মানের প্যাকিং ম্যাটারিয়ালস। শিফটিং ফ্রেন্ডলি পরিবহন ব্যবস্থা, ফার্ণিচার ও ইলেকট্রিক হোম এপলায়েন্স সেটিং ও রি-সেটিং এর জন্য আলাদা টেকনিশিয়ান, অনলাইনে অর্ডার প্রদান করা, ফ্রী এসেসমেন্ট। আরো রয়েছে শিফটিং পরবর্তী ওয়ারেন্টি ও মেরামতের ব্যবস্থা।শিফটিং শেষ হলেও আ্মাদের কাজ শেষ হয়ে যায়না। শিফটিং পরবর্তী ১ সপ্তাহ পর্যন্ত আমরা কোন প্রকার ত্রুটি দেখা দিলে আমাদের টেকনিশিয়ান এর মাধ্যমে সমাধানের চেস্টা করি। বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস,

অফিস বদলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে লেবার।আমাদের রয়েছে দক্ষ ও প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত শিফটিং লেবার। রয়েছে একাধিক লেবার টিম। প্রত্যেক টীমে রয়েছে একজন করে টীম লিডার। টীম লিডারের নির্দেশনা মেনে চলে অন্যান্য লেবারগণ। কোম্পানীর নিজস্ব হাউজে বসবাস করে এসব লেবাগণ। দিবারাত্রি ২৪ঘন্টা সার্ভিসের জন্য তৈরী তারা।

এতদসত্বেও এখনও অনেকেই শিফটিং নিয়ে চিন্তিত থাকেন।এর মূল কারন হলো তারা এখনো প্যাক এন্ড শিফটের সাথে সংযুক্ত হতে পারেননি।

বাসা ও অফিস বদলের ট্রাক ও লেবার

বাসা বদলের ট্রাক ও লেবার নির্বাচন করতে হয় খুব ভেবে চিন্তে।

বাসা বদলের ট্রাক ও লেবার সংগ্রহ একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, তাই ইহা নির্বাচন করার সময় খুব ভেবে চিন্তে ঠিক করতে হবে। মনের রাখতে হবে আপনার শখের আসবাবপত্র ও মালামাল সবকিছু তাদে হাতে ছেড়ে দিতে হবে। তারা কতটুকু এগুলোর যত্ন নিবে তা নির্ভর করে পেশাদার ও সত শ্রমিকের উপর। এম

এমনিতে বাসা স্থানান্তরের সময় ঘনিয়ে আসলে পেরেশানী বেড়ে যায়, এসময় ডান্ডা মাথায় কাজ করতে হবে। একমাস আগে থেকেই জল্পনা কল্পনা শুরু হয়ে যায়। কিভাবে শিফটিং করব, কাকে দিয়ে করাব। শখের আসবাবপত্র নষ্ট করে ফেলবে নাতে। কোন কিছু চুড়ি হয়ে যাবে নাতো? হরেক রকমের চিন্তা মাথায় এসে ভর করে। ব্যাঙ্গের ছাতার মতো গজিয়ে উঠা অসংখ্য কোম্পানীর মধ্যে প্রকৃত মুভিং কোম্পানীর জন্য নেটে খোজাখুজি করতে গিয়ে কেউ কেউ সিদ্ধান্ত নিতে ভুল করে সর্বনাশ করে ফেলেন। তাই ভেবে চিন্তে শিফটিং কোম্পানী বাছাই করতে হবে। নতুবা শুধু আফছোছই করতে হবে কোন লাভ হবেনা। বাসা শিফটিং এর সাথে আরো কত রকমের কাজ যে রয়েছে তার অন্ত নেই। সর্ব প্রথমেই আসে প্যাকিং-আনপ্যাকিং, ফার্ণিচার খোলা-ফিটিং, লোডিং-আনলোডিং ট্রান্সপোর্ট ইত্যাদি। বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস,

ধাপ- ১ঃ বাসা বদলের প্যাকিং

বাসা বদলের পূর্বে নিধারিত তারিখ ও সময়ে আমাদের প্যাকার্সরা হাজির হয়ে যায় প্যাকিং এর জন্য। সঙ্গে নিয়ে যায় প্রয়োজনীয় সব প্যাকিং ম্যাটারিয়ালস। প্যাকিং করার জন্য বাসার মালিকের ঘর থেকে কোন কিছুই নিতে হয়না। ক্রোকারিজের আইটেমে র‌্যাপিং পেপার, বাবল পেপার, নিউজ পেপার ইত্যাদি দিয়ে র‌্যাপিং করে কার্টুন বক্সে ভরে ট্যাগ করে রাখে। কাঁচ ও ভঙ্গুর পদার্থের ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্কতা চিহ্ন স্টিকার(ফ্রেগল) লাগিয়ে দেয় বক্সের গায়ে। যাতে করে যে কেউ বুঝতে পারে বক্সে ভিতর কি আছে। ফলে মামামালের ক্ষয়ক্ষতি হইতে রক্ষা পাওয়া যায়। আলমারীর কাপর ও পর্দা- পলি ব্যাগের মধ্যে ভরে কার্টুনে রাখা হয়। পরিবারের প্রত্যেক সদস্যের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র বক্সে রেখে ঐ সদস্যের নাম লিখে রাখা হয়। শিশুদের জিনিসপত্র আলাদা বক্সে রাখা হয়। ব্যক্তিগত ও নগদ অলংকারাধী আমারা প্যাকিং করিনা। বাসার মালিককে আগেই নোটিশ দিয়ে দেয়া হয় নিজেরা বহন করার জন্য। ইলেকট্রনিক্স জিনিস সমুহ বিশেষে ব্যবস্থায় প্যাকিং করা হয়। ইন্টান্যাশনাল মুভিং এর ক্ষেত্রে বিশেষ প্যাকিং ম্যাটারিয়ালস ব্যবহার করা হয়। যেমন: ককশিট ও কাঠের বক্স ব্যবহার করা হয়। ভিতরে সিলিকন জেল ব্যবহার করা হয়। বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস,
ধাপ- ২- বাসা বদলের টেকনিশিয়ান:

এই ধাপে বাসায় যেসব টেকনিক্যাক কাজ থাকে যেমন: ফ্রীজ, এয়ারকন্ডিশন, ফ্যান, গিজার, আইপিএস, ভার্টিক্যাল পর্দা, গ্যাসের চুলা সহ বিভিন্ন রকমের টেকনিক্যাল কাজ থাকে। ইলেকট্রিক কাজের জন্য ইলেকট্রিক মিস্ত্রি, ফার্ণিচার খোলা ও ফিটিং এর জন্য ফার্ণিচার মিস্ত্রী আলাদা ভাবে পাঠানো হয়। আমাদের টেকনিশিয়ানরা এগুলো খুলে আলাদা করে প্যাকিং করে ট্যাগ লাগিয়ে রাখেন। বাসার মালিকের নির্দেশনাক্রমে শিফটিং এর পূর্বেই ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিক্স জিনিসপত্র পুরাতন বাসা থেকে খুলে নতুন বাসায় ফিটিং করা হয়। যেদিন ফার্ণিচার ও অন্যান্য আসবাপত্র শিফটিং হবে সেদিন কোন প্রকার খোলা ও ফিটিং এর কাজ করা হয় না।
ধাপ-৩- বাসা বদল পরবর্তী ১সপ্তাহের ওয়ারেন্টি:

ওয়ারেন্টিঃ টেকনিক্যাল কাজের জন্য এক শিফটিং এর দিন হইতে ১ সপ্তাহ পর্যন্ত পর্যন্ত ফ্রি সার্ভিসিং প্রদান করা হয়। কারন ফিটিং এর পর কিছু সমস্যা থাকতেই পারে, তাই কাজ সম্পন্ন হওয়ার এক সপ্তাহের মধ্যে কোন সমস্যা হলে আমাদের টেকনিশিয়ান পাঠিয়ে মেরামতের ব্যবস্থা করা হয়। যদিও ফিটিং এর সময় রান করে দেখিয়ে দিয়ে আসা হয় তবুও আমরা সাত দিন পর্যন্ত এই সেবা দিয়ে থাকি। তবে সাত দিনের বেশী হইলে আমরা এই দায়িত্ব গ্রহন করিনা। বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস,
ধাপ- ৪ঃ বাসা বদলের লেবার, ট্রাক, পিকাপ ও কাভার্ড ভ্যান:

বাসা বদল করতে বিভিন্ন ধরনের উপাদান প্রয়োজন পরে যেমন: লেবার, ট্রাক, ও কাভার্ড ভ্যান ইত্যাদি। বিশেষ করে বর্ষাকালীন সময়ে কাভারড ভ্যান ছাড়া মালামাল ভিজে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। বেশী দূরত্বে শিফট করা কিংবা অত্যন্ত মূল্যবান সামগ্রীর ক্ষেত্রে কাভারড ভ্যান ব্যবহার করাই শ্রেয়। ঝড় বৃষ্টি ও বিরুপ আবহাত্তয়ায়, হরতাল অবরোধ রাজনৈতিক অস্থিরতা ইত্যাদি ক্ষেত্রে কভারড ভ্যান নিরাপদ। খোলা ট্রাক ও পিকাপ ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু সুবিধাও আছে যেমন: আসবাবপত্র ট্রাকে লোড দেয়ার পর প্রথমে পলিথিন দিয়ে ঢাকা হয় তার উপর ট্রিপল দেয়া হয়। ট্রিপল দেয়ার পর সবশেষে মোটা রশি দিয়ে চতুর্দিকে টাইট করে বাধা হয়। ফলে কোন আসবাবপত্র নরাচরা করার সুযোগ থাকে না। আসবাব পত্রে কোন দাগ বা ডেমেজ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে না। বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস,
ধাপ- ৫- বাসা বদল এর কার্টুন বক্স

কার্টুন বক্স আমারা সাধারনত আমাদের বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস, কোম্পানীর নিজস্ব কার্টুন বক্সই ব্যবহার করি। আমাদের রয়েছে কোম্পানির নাম ও লগো দিয়ে ছাপানো নতুন কার্টুন বক্স। এই বক্সগুলো শিফটিং বান্ধব ও প্যাকিং কাজে সহজতর। কয়েক সাইজের বক্স রয়েছে। এই বক্সগুলো এক্সপোর্ট কোয়ালিটির। আমরা আলাদা ভাবে কার্টুন বক্স বিক্রীও করে থাকি। প্রতি বক্সের মূল্য ২০০টাকা। যে সামগ্রীর জন্য যে সাইজ দরকার সেই সাইজেরই ব্যবহার করা যায়। একাধিক সাইজের বক্সের সুবিধা হলো সাইজ মোতাবেক মালামাল ভরা যায়। তাহলে জিনিসপত্র নষ্ট বা ভাঙ্গার সম্ভাবনা থাকে না। বক্সের উপরেআইটেম অনুযায়ী তালিকা দেওয়া আছে তাই সহজেই চিহ্নিত করা যায়। শুধু টিক চিহ্ন অথবা ফাঁকা লাইনে মার্কার বা কলম দিয়ে লিখে রাখলে দ্রুত খুজে পাওয়া যায়। কাঁচ, গ্লাস এবং ভঙ্গুর আইটেম এর জন্য রয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা। এজাতীয় জিনিসের জন্য বিশেষ চিহ্নবিশিষ্ট কার্টুন বক্স রয়েছে। ফলে ভঙ্গুর পদার্থের জিনিস পত্রের বেলায় বিশেষ যতœ ও সতর্কতা অবলম্বন করা যায়। আমাদের বক্সগুলো অপেক্ষাকৃত শক্ত ও মজবুত যার ফলে একটির উপর একটি রাখলে বক্স বাকিয়ে যায়না। মালামাল নষ্ট হয়না। আমাদের কার্টুনগুলো নিজস্ব গোডাউনে নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় রাখা হয় ফলে টেম্পার থাকে অটুট।

বাসা স্থানান্তরের পেরেশানী কমানোর উপায় বাসা স্থানান্তর

বাসা স্থানান্তরের পেরেশানী কমানোর উপায় বাসা স্থানান্তর

বাসা স্থানান্তরের সময় পেরেশানী কমানোর উপায়: বাসা পরিবর্তনের সময় ঘনিয়ে আসলে পেরেশানী বেড়ে যায়, এসময় ঠান্ডা মাথায় কাজ করতে হবে। একমাস আগে থেকেই জল্পনা কল্পনা শুরু হয়ে যায়: কিভাবে প্যাকিং করব, শিফটিং করব, কাকে দিয়ে করাব, শখের আসবাবপত্র অক্ষতভাবে শিফটিং করতে পারবত ইত্যাদি? কোন কিছু চুড়ি হয়ে যাবে নাতো? হরেক রকমের চিন্তা মাথায় এসে ভর করে। ব্যাঙ্গের ছাতার মতো গজিয়ে উঠা অসংখ্য কোম্পানীর মধ্যে প্রকৃত মুভিং কোম্পানীর জন্য নেটে খোজাখুজি করতে গিয়ে কেউ কেউ সিদ্ধান্ত নিতে ভুল করে সর্বনাশ করে ফেলেন। তাই ভেবে চিন্তে শিফটিং কোম্পানী বাছাই করতে হবে। নতুবা শুধু আফছোছই করতে হবে কোন লাভ হবেনা। বাসা শিফটিং এর সাথে আরো কত রকমের কাজ যে রয়েছে তার অন্ত নেই। সর্ব প্রথমেই আসে প্যাকিং-আনপ্যাকিং। ফার্ণিচার খোলা-ফিটিং, লোডিং-আনলোডিং ট্রান্সপোর্ট ইত্যাদি।
ধাপে ধাপে বাসা স্থানান্তর সার্ভিস দিয়ে থাকি: “MCP IDEA”
ধাপ- ১: বাসা বদলের প্যাকিং

পূর্ব নিধারিত তারিখ ও সময়ে আমাদের প্যাকার্সরা হাজির হয়ে যায় প্যাকিং এর জন্য। সঙ্গে নিয়ে যায় প্রয়োজনীয় সব প্যাকিং ম্যাটারিয়ালস। প্যাকিং করার জন্য বাসার মালিকের ঘর থেকে কোন কিছুই নিতে হয়না। ক্রোকারিজের আইটেমে র‌্যাপিং পেপার, বাবল পেপার, নিউজ পেপার ইত্যাদি দিয়ে র‌্যাপিং করে কার্টুন বক্সে ভরে ট্যাগ করে রাখে। কাঁচ ও ভঙ্গুর পদার্থের ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্কতা চিহ্ন স্টিকার(ফ্রেগল) লাগিয়ে দেয় বক্সের গায়ে। যাতে করে যে কেউ বুঝতে পারে বক্সে ভিতর কি আছে। ফলে মামামালের ক্ষয়ক্ষতি হইতে রক্ষা পাওয়া যায়। আলমারীর কাপর ও পর্দা- পলি ব্যাগের মধ্যে ভরে কার্টুনে রাখা হয়। পরিবারের প্রত্যেক সদস্যের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র বক্সে রেখে ঐ সদস্যের নাম লিখে রাখা হয়। শিশুদের জিনিসপত্র আলাদা বক্সে রাখা হয়। ব্যক্তিগত ও নগদ অলংকারাধী আমারা প্যাকিং করিনা। বাসার মালিককে আগেই নোটিশ দিয়ে দেয়া হয় নিজেরা বহন করার জন্য। ইলেকট্রনিক্স জিনিস সমুহ বিশেষে ব্যবস্থায় প্যাকিং করা হয়। ইন্টান্যাশনাল মুভিং এর ক্ষেত্রে বিশেষ প্যাকিং ম্যাটারিয়ালস ব্যবহার করা হয়। যেমন: ককশিট ও কাঠের বক্স ব্যবহার করা হয়। ভিতরে সিলিকন জেল ব্যবহার করা হয়। বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস,

ধাপ- ২ঃ দ্বিতীয় ধাপে টেকনিশিয়ানঃ টেকনিক্যাল কাজ যেমন: ফ্রীজ, এয়ারকন্ডিশন, ফ্যান, গিজার, আইপিএস, ভার্টিক্যাল পর্দা, গ্যাসের চুলা সহ বিভিন্ন রকমের টেকনিক্যাল কাজ থাকে। ইলেকট্রিক কাজের জন্য ইলেকট্রিক মিস্ত্রি, ফার্ণিচার খোলা ও ফিটিং এর জন্য ফার্ণিচার মিস্ত্রী আলাদা ভাবে পাঠানো হয়। আমাদের টেকনিশিয়ানরা এগুলো খুলে আলাদা করে প্যাকিং করে ট্যাগ লাগিয়ে রাখেন। বাসার মালিকের নির্দেশনাক্রমে শিফটিং এর পূর্বেই ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিক্স জিনিসপত্র পুরাতন বাসা থেকে খুলে নতুন বাসায় ফিটিং করা হয়। যেদিন ফার্ণিচার ও অন্যান্য আসবাপত্র শিফটিং হবে সেদিন কোন প্রকার খোলা ও ফিটিং এর কাজ করা হয় না।

ধাপ-৩: ওয়ারেন্টিঃ টেকনিক্যাল কাজের জন্য এক শিফটিং এর দিন হইতে ১ সপ্তাহ পর্যন্ত পর্যন্ত ফ্রি সার্ভিসিং প্রদান করা হয়। কারন ফিটিং এর পর কিছু সমস্যা থাকতেই পারে, তাই কাজ সম্পন্ন হওয়ার এক সপ্তাহের মধ্যে কোন সমস্যা হলে আমাদের টেকনিশিয়ান পাঠিয়ে মেরামতের ব্যবস্থা করা হয়। যদিও ফিটিং এর সময় রান করে দেখিয়ে দিয়ে আসা হয় তবুও আমরা সাত দিন পর্যন্ত এই সেবা দিয়ে থাকি। তবে সাত দিনের বেশী হইলে আমরা এই দায়িত্ব গ্রহন করিনা।

ধাপ- ৪ঃ ট্রাক পিকাপ ও কাভারড ভ্যান: বাসা শিফট করতে বিভিন্ন ধরনের ও সাইজের পরিবহন প্রয়োজন হয়। বিশেষ করে বর্ষাকালীন সময়ে কাভারড ভ্যান ছাড়া মালামাল ভিজে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। বেশী দূরত্বে শিফট করা কিংবা অত্যন্ত মূল্যবান সামগ্রীর ক্ষেত্রে কাভারড ভ্যান ব্যবহার করাই শ্রেয়। ঝড় বৃষ্টি ও বিরুপ আবহাত্তয়ায়, হরতাল অবরোধ রাজনৈতিক অস্থিরতা ইত্যাদি ক্ষেত্রে কভারড ভ্যান নিরাপদ। খোলা ট্রাক ও পিকাপ ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু সুবিধাও আছে যেমন: আসবাবপত্র ট্রাকে লোড দেয়ার পর প্রথমে পলিথিন দিয়ে ঢাকা হয় তার উপর ট্রিপল দেয়া হয়। ট্রিপল দেয়ার পর সবশেষে মোটা রশি দিয়ে চতুর্দিকে টাইট করে বাধা হয়। ফলে কোন আসবাবপত্র নরাচরা করার সুযোগ থাকে না। আসবাব পত্রে কোন দাগ বা ডেমেজ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে না। বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস,

বাসা পাল্টানোর পূর্ব প্রস্তুতি

বাসা পাল্টানোর পূর্ব প্রস্তুতি পেরেশানী থেকে মুক্তি

নতুন বছরে অনেকেই বাড়ি বদল করে থাকেন।নতুন বাসা খোঁজা,জিনিসপত্র স্থানান্তর,নতুন বাসায় যাওয়ার পরে আবার সেই বাসা গোছান,টেলিফোন,ডিশ লাইনের ব্যবস্থা ইত্যাদি ঝামেলা এসে দাঁড়ায় সামনে।বেশ কয়েকবার বাসা বদল করেছেন তাদের ভালো অভিজ্ঞতা থাকলেও নতুনদের কাছে বিষয়টি বেশ ঝামেলার।
নতুন বাসাঃ
শুধু বাসা সুন্দর আর অভিজাত এলাকায় হলেই চলবে না,জেনে নিন বাসার মালিক সম্পর্কে।এজন্য কথা বলতে পারেন বাড়ির অন্যান্য ভাড়াটিয়াদের সাথে এবং বাড়ির নিরাপত্তার বিষয়টিও নিশ্চিত হয়ে নিন।
বাসার জিনিস গুছিয়ে নিনঃ
বাসা বদল করার সময় অনেক জিনিস হারিয়ে যায় বা ভেঙ্গে জায়।এজন্য আপনার বাসার জিনিসপত্রের একটা তালিকা তৈরি করে নিন এবং সে মোতাবেক প্যাক করুন।হাল্কা ধরনের জিনিস এবং হাঁড়িপাতিলগুলো একধরনের বস্তায় গুছিয়ে নিতে পারেন।বাসার টিভি,ফ্রিজ,ওভেন ও কম্পিউটার সহ ছোট অথবা বড় ইলেকট্রনিক জিনিসগুলো সুন্দরভাবে প্যাকেটে ভরে নিতে হবে।আর যেসব জিনিস কাচের বা ভঙ্গুর,সেগুলো খোলা কিছুতে বসিয়ে হাতে হাতে পরিবহন করতে হবে।

পরিবহনঃ

হেভী ইন্ডাষ্ট্রিয়াল মেশিনারীজ লোডিং আনলোডিং

মেশিনারীজ ইনস্টলেশন:

ক্লায়েন্টদের জন্য আদর্শ পরিষেবা যা তারা  “উচ্চ মূল্য” বা “উচ্চ বীমা” সরঞ্জামগুলি বিবেচনা করবে যা সাধারণত সংবেদনশীল পণ্য সরবরাহের জন্য আমাদের ক্র্যাটিং / প্যাকিং পরিষেবা সহ মিলিত হয়।

পোর্টেবল এয়ার মুভিং সিস্টেম এবং ইলেকট্রিক ক্রেনের মতো বিশেষ সরঞ্জাম ব্যবহার করা আমাদের জন্য সাধারণ, যেমন আমরা প্রায়ই ক্লিনারুমের পরিস্থিতিতে কাজ করি

 

** প্রাসঙ্গিক শিল্প: ফার্মা, চিকিৎসা, রাসায়নিক, প্রকৌশল, মহাকাশ, আইটি, কখনও কখনও উৎপাদন / উৎপাদন

** প্রাসঙ্গিক যন্ত্রপাতি টাইপ:   যন্ত্রপাতি, মেডিকেল ডিভাইস উত্পাদন যন্ত্রপাতি, সংবেদনশীল যন্ত্রপাতি, তথ্য চিলার, আইটি সার্ভার, ফার্মাসিউটিক্যাল উত্পাদন যন্ত্রপাতি

শিল্প মুভিং এবং কনসালটন:

বাসা চেঞ্জ করছেন? মেনে চলুন এই টিপস গুলো

বাসা চেঞ্জ করে নতুন বাসায় স্থানান্তর হওয়া খুব জটিল এবং কঠিন একটি কাজ। এক্ষেত্রে যেমন সময় খরচ হয় তেমনি শক্তিও খরচ হয় প্রচুর আর আর্থিক বিষয়টা কখনোই বাজেটের ভেতর থাকে না। কিন্তু কিছু নিয়মের ভেতর দিয়ে গেলে কিছুটা সহজতা আসতে পারে। বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস,

বাসা পাল্টানো যেমন ভীষণ ঝামেলার কাজ, তেমনি আবার আনন্দেরও বটে। আনন্দ হলো নতুন বাসায় সবকিছু নতুন করে গুছিয়ে নেয়া। কিন্তু এক বাসার জিনিসপত্র অন্য বাসায় নিয়ে যাওয়াটা বেশ কষ্টদায়ক।

বাসা বাড়ি বদল সার্ভিস, আগে থেকেই প্রস্তুত সবকিছু

রাজধানী ঢাকা সহ বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলাতে অনেকেই বাসা ভাড়া নিয়ে থাকেন। চাকুরীতে বদলী-প্রমোশন, সন্তানের স্কুল পরিবর্তন, বর্তমান ও নতুন বাসার সুবিধা অসুবিধা ইত্যাদি সহ আরো বহু কারনেই বাড়ি বদল করে থাকেন অনেকেই। বাড়িওয়ালার সাথে বনিবণা না হওয়ার কারনেও বাসা পরিবর্তন করা হয়ে থাকে।

আরো আছে যেমন যেমন, গ্যাস পানি বিদ্যুত ইত্যাদি সমস্যাজিনত কারনেও বাড়ি স্থানান্তর করে থাকেন কেউ কেউ। কেউবা ভাড়া বাসায় আছেন নিজের ফ্লাটে বা বাসায় উঠার জন্য বাড়ি স্থানান্তর করেন। আবার কেউ কেউ নিজের বাড়িতে সকল সুযোগ সুবিধা না থাকার কারনে ভাড়া বাসায় উঠেন। অথবা নিজের বাড়ি সাধারণ এলাকায় কিন্ত স্ত্রী সন্তানকে নিয়ে অভিজাত এলাকায় বসবাসের জন্যও অনেকেই বাসা পরিবর্তন করে থাকেন। কেউ হয়তো নিজ দেশ পাড়ি দিয়ে বিদেশ বিভূইয়ে পাড়ি দেওয়ার জন্য বাসা বদল করেন এমন সংখ্যাটাও কিন্তু কম নয়। কিন্তু বাসা পরিবর্তন করাটা বিরক্তিকর একটি কাজ হিসেবে মনে করেন অনেকেই। কেননা বাসার সমস্ত জিনিসপত্র এলোমেলো করে আবার নতুন বাসায় গিয়ে গুছিয়ে রাখা বেশ কষ্টের। এই বড় কাজটি ছুটির দিনগুলোতেই সেরে ফেলতে হয়। বাসা পরিবর্তনের কাজটি সেরে ফেলার আগে যে ৫ টি বিষয় মাথায় রাখবেন।

বাসা বদল সার্ভিস ঢাকা

রাজধানী ঢাকায় বাসা বদল করুন খুব সহজে:

 

যারা ভাড়া বাড়িতে থাকেন তাদের জন্য বাসা বদল মানে এক বিড়াট ঝামেলার বিষয়। বিশেষ করে রাজধানী ঢাকায় বাসা বদলের ঝামেলার কথা ভেবে অনেকেই বছরের পর বছর থেকে যান একই বাসায়। বাসা পরিবর্তনের নাম নিলেই প্রেশার বেড়ে যায়। কারন একমাত্র ভুক্তভোগিরাই জানেন বাসা বদল কত বড় ঝক্কি ঝামেলার বিষয়। তবে এখন যুগ পরিবর্তন হয়েছে। বাসা বদলেও আধুনিকায়ন হয়েছে এখন আর আগের মত বাসা বদল কোন ঝামেলার বিষয় নয়। এখন খুব সহজেই বাসা পরিবর্তনের সকল কাজ সম্পন্ন হয়ে থাকে। বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস,

বাসা পরিবর্তনের সহজ উপায়

বাসা পরিবর্তনের সময় শেষ মুহূর্তে তাড়াহুড়ো না করে আগে থেকে একটি পরিকল্পনা তৈরী করে নিন। এজন্য ঘরের সকল সদস্যদের সাথে পরামর্শ করুন কারন বাসা পরিবর্তনের সাথে পরিবারের সকল সদস্য জড়িত থাকে। সকলের রুমেই আলাদা আলাদা ও ব্যক্তিগত মালামাল থাকে, তাই বাসা শিফটিং এর সম্পর্কে সকলেরই ধারনা থাকা উচিত। এ বিষয়ে সকলের সার্বিক অবগত থাকলে শিফটিং কার্যক্রম সহজ হয়।

বাসা পরিবর্তনের ক্ষেত্রে ঢাকা সহ সমগ্র বাংলাদেশে অন্যতম বিশ্বস্থ কোম্পানী গুলোর মধ্যে হলো অন্যতম। আমরা সুদৃঢ় ও দক্ষতার সাথে সকল কাজ সম্পন্ন করি ও আমাদের গ্রাহদের বাসা পরিবর্তনের জন্য সঠিক গাইডলাইন দিয়ে থাকি, যাতে তারা সহজ ও নিরাপদে তাদের বাসা, বাড়ি পরিবর্তন করতে পারে। আমরা আমাদের ক্লায়েন্টদের সর্বোত্তম সেবা দানে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

আমরা মনে করি যে, প্রতিটা পরিবারই অন্য সকল পরিবার থেকে ভিন্ন। তাদের আচার-আচরন, মালপত্র, আসবাবপত্রের ধরন ও পরিবেশ এর মধ্যে ভিন্নতা রয়েছে। তাই, আমরা তাদের আসবাবপত্র সমুহ পরিবর্তনের জন্য ফ্রি এসেসমেন্ট সুবিধা দিয়ে থাকি যাতে তারা নতুন এক অভিজ্ঞতা সঞ্চার করতে পারে। আপনার অর্থনৈতিক পরিকল্পনা, সময় এবং আপনার বাসা পরিবর্তনের চাহিদা অনুযায়ী সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে খুবই পরিকল্পতিত ও সুদৃঢ়।

কেনো আমরাই বাসা শিফটিং এ সর্বোত্তম কোম্পানি?

আমরা জানি গ্রাহকদের চাহিদা, বুঝি তাদের রুচিবোধ। দীর্ঘ ২০ বছর সফলতার সাথে কাজ করে তাদের অল্প সময় কথা বলেই বুঝতে পারি তাদের মনের ভাষা। গ্রাহদকদের রুচী ও ব্যক্তিত্বের সাথে মিল রেখে যে বিষয় গুলো বিবেচনায় রাখি তা হলো:

গায়ে হাওয়া লাগিয়ে যেভাবে বাসা বদলাবেন

এই লেখাটা শুরু করতে চাই একটা কৌতুক দিয়ে।

প্রায় একই সময়ে মৃত্যুর পর তিনজন লোক গিয়েছে স্বর্গের দরজায়। সেখানে দাঁড়িয়ে থাকা স্বর্গের দারোয়ান বললো, তোমাদের ভেতর থেকে মাত্র একজন প্রবেশ করতে পারবে স্বর্গে। তাই তোমাদের সবচেয়ে কষ্টের কথাটা আমাকে বলো। যার কথা শুনে আমার বেশি কষ্ট লাগবে, তারই জায়গা হবে এখানে, বাকিদের জন্য নরক ছাড়া উপায় নেই।

এই শুনে প্রথমজন বললো, আমি বিয়ে করেছিলাম তিনবার, তিনবারই বৌ আমাকে ছেড়ে চলে গিয়েছিলো।
দারোয়ান সান্ত্বনার গলায় বললো, আহারে! একটা, বা বড়জোর দুইটা বউ হলে তাও মানা যেতো, কিন্তু তিন তিনটা বৌ চলে যাওয়াটা খুবই দুঃখজনক। আচ্ছা, পরেরজন বলো শুনি। MCPIDEA, বাসা ও অফিস বদল সার্ভিস,

দ্বিতীয়জন বললো, সারাজীবন আমার অভাব অনটনে কেটেছে। কিন্তু হুট করে একদিন একটা একটা লটারি জিতে গেলাম, এক কোটি টাকা। তবে কপাল খারাপ হলে যা হয়, যেদিন টাকাটা তুলতে যাবো, সেদিনই একটা গাড়ির নিচে চাপা পড়ে মরে গেলাম।

দারোয়ান কথাটা শুনে বেশ দুঃখ পেলো। বললো, তোমার ঘটনা দেখি আরো কষ্টের। টাকা পেয়েও জীবন উপভোগ করার সুযোগ পাওনি। আচ্ছা, শেষেরজন বলো দেখি, তোমার জীবনে সবচেয়ে বেশি দুঃখটা কিসের?

তৃতীয়জন বললো, আমার জন্ম ঢাকা শহরে, একটা জীবন কাটিয়ে দিয়েছি ভাড়া বাসায় থাকতে থাকতে। সারাটা জীবনে মোট তেপ্পান্নোবার বাসা পাল্টাতে হয়েছিলো আমাকে..।

এই শুনে দারোয়ানের চোখে পানি চলে এলো। ধরা গলায় সে বললো, থাক আর কিছু বলিস না..ঢাকা শহরে বাসা পাল্টানো যে কি কষ্টের সেটা বলে বোঝাতে পারবি না কাউকে!..যা..স্বর্গে ঢুকে যা।

উপরের ঘটনাটা কৌতুক হিসেবে চালিয়ে দিলেও যারা জীবনে অন্তত একবার বাসা পাল্টেছেন, তারাই জানেন বাসা পাল্টানোর ঝঁক্কি কতোটা। মালপত্র বাধা থেকে শুরু করে নতুন বাসা পর্যন্ত নিয়ে যাওয়া- পুরোটা সময়ই আপনাকে থাকতে হয় আতঙ্কে। এই বুঝি কাঁচের জিনিস ভেঙ্গে গেলো, এই বুঝি শখের আলমারিটাতে দাগ লেগে গেলো, এই বুঝি কিছু চুরি হয়ে গেলো- এমনসব ভাবনার পাশাপাশি নতুন দুঃশ্চিন্তা যোগ হয়, কোন জিনিস কোথায় রেখেছি। দরকারি জিনিসপত্র খুঁজে পেতেই এক মাস চলে যায়। তবে সময়ের সাথে সাথে এই চিত্র বদলে গিয়েছে অনেকখানি, বিশেষ করে ডিজিটাল যুগে প্রবেশ করার পর। ঝামেলামুক্ত বাসা অথবা অফিস বদলানোর সার্ভিস এখন চলে এসেছে আপনার হাতের মুঠোয়। এইসব ঝামেলা আপনি এখন এর হাতে তুলে দিতে পারবেন। সেজন্য আপনাকে আমাদের অফিসেও আসার প্রয়োজন নেই। ফোনে বা অনলাইনে আমাদের সাথে যোগাযোগ করলেই নিজস্ব লোকবল নিয়ে আমরা হাজির হয়ে যাবো আপনার বাসায়।

We are available all over Bangladesh including:

Barguna District, Barisal District, Bhola District, Jhalokati District, Patuakhali District, Pirojpur District, Bandarban District, Brahmanbaria District, Chandpur District, Chittagong District, Comilla District, Cox’s Bazar District, Feni District, Khagrachhari District, Lakshmipur District, Noakhali District, Rangamati District, Dhaka District, Faridpur District, Gazipur District, Gopalganj District, Kishoreganj District, Madaripur District, Manikganj District, Munshiganj District, Narayanganj District, Narsingdi District, Rajbari District, Shariatpur District, Tangail District, Bagerhat District, Chuadanga District, Jessore District, Jhenaidah District, Khulna District, Kushtia District, Magura District, Meherpur District, Narail District, Satkhira District, Jamalpur District, Mymensingh District, Netrokona District, Sherpur District, Bogra District, Joypurhat District, Naogaon District, Natore District, Chapai Nawabganj District, Pabna District, Rajshahi District, Sirajganj District, Dinajpur District, Gaibandha District, Kurigram District, Lalmonirhat District, Nilphamari District, Panchagarh District, Rangpur District, Thakurgaon District, Habiganj District, Moulvibazar District, Sunamganj District, Sylhet District


We are available in entire Dhaka city including:

Adhabor, Azimpur, Neke Agargaon, Azimpur, BUET campus, Badda, Bakshibazar, Banani, Banani DOHS, Banasree, Bangshal, Baridhara, Baridhara DOHS, Basabo, Basundhara, Cantonment, Chouk Bazar, DU campus, Dakhin Khan, Dayaganj, Demra, Dhamrai, Dhanmondi, Dohar, Elephant Road, Farmgate, Gabtali, Gandaria, Gulshan 1, Gulshan 2, Hazaribagh, Jatrabari, Jurain, Kafrul, Kalabagan, Kalyan Pur, Kamala Pur, Kamrangirchar, Kathal Bagan, Kawran Bazar, Kazipara, Keraniganj, Khilgaon, Khilkhet, Kotwali, Lalbag, Lalmatia, Magh Bazar, Malibag, Mirpur, Mirpur DOHS, Mohakhali, Mohakhali DOHS, Mohammad Pur, Motijheel, Nakhal Para, Narinda,Nawab Ganj, Naya Paltan, New Eskaton, New Market, Nilkhet, Pallabi, Panthapath, Postagola, Purana Paltan, Purbachal, Raja Bazar, Rajarbag  , Ramna, Rampura, Rayer Bazar, Rupnagar, Sabujbag, Sadarghat, Savar, Segunbagicha, Shahbag, Shajahan Pur, Shampur, Shantinagar, Sher-e-BanglaNagar, Shyamoli, Shamoli, Siddeswary, Sutrapur, Tejgaon, Tonggi, Uttar Khan, Uttara, Wari, Zigatola, Aftab Nagor, Bonosri, Estarn Housing, Nikunja

ADDRESS

154/11/A, West Nakhalpara, Tejgoan, Dhaka, 1215, Call:
+880 1962 180 678,
+880 1781 695 325,
+880 1719 198 778,
+880 1999 979 411,
+880 1629 877 050

© MCP Idea, 2007-2020.

Design & Developed by AtZ Technology - A World Best Web Development Company